লাইফ ইন্সুরেন্স কি? কেনো লাইফ ইন্সুরেন্স করা প্রয়োজন 

লাইফ ইন্সুরেন্স কি? কেনো লাইফ ইন্সুরেন্স করা প্রয়োজন

ইন্সুরেন্স (Insurance) কথাটির সাথে আমরা প্রায় সকলেই পরিচিত৷ বিশেষত বর্তমানের স্যাটেলাইটের বদৌলতে ইন্সুরেন্স কোম্পানির বিজ্ঞাপন প্রায়শই আমাদের চোখে পড়ে৷

আর যারা প্রবাসে পাড়ি জমান, তারা জানেন যে এই ইন্সুরেন্সের কতটা প্রভাব বহির্বিশ্বে রয়েছে৷

এই ইন্সুরেন্স আসলে কি? ইন্সুরেন্স সম্পর্কে জানা থাকলে অনেকেই ইন্সুরেন্স করে রাখতাম আমরা৷ অন্তত লাইফ ইন্সুরেন্স (Life Insurance)৷

লাইফ ইন্সুরেন্স এমন একটি সিকিউরিটি প্রোভাইড করে যা আমাদের পরিবারের জন্য খুবই প্রয়োজনীয়৷ এই লাইফ ইন্সুরেন্স নিয়েই আজকে আমরা জানবো৷ এ নিয়ে বিস্তারিত জানতে পুরো আর্টিকেল মনোযোগ দিয়ে পড়ুন৷

লাইফ ইন্সুরেন্স কি?লাইফ ইন্সুরেন্স কি? কেনো লাইফ ইন্সুরেন্স করা প্রয়োজন 

লাইফ ইন্সুরেন্স হচ্ছে ইন্সুরেন্স কোম্পানি ও ইন্সুরেন্স গ্রহীতার মাঝে সম্পাদিত লিখিত একটি লাভজনক আইনসম্মত আর্থিক চুক্তি৷

এ চুক্তির মাধ্যমে ইন্সুরেন্স কোম্পানি যেমন লাভবান হয়, ঠিক তেমনই গ্রহীতার পরিবারও লাভবান হয়ে থাকে৷

সাধারণত লাইফ ইন্সুরেন্স চুক্তি একজন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান অথবা একাধিক ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের মাঝে হয়ে থাকে৷

লাইফ ইন্সুরেন্সে দু’পক্ষই লাভবান হয় বিধায় এর চাহিদা দিনকে দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে৷ উন্নত দেশগুলোতে লাইফ ইন্সুরেন্স অতীব প্রয়োজনীয় ও অবশ্য করণীয় হিসেবে বিবেচিত হয়ে থাকে৷

সাধারণত এর মাধ্যমে ইন্সুরেন্স গ্রহীতা ইন্সুরেন্স প্রদান করা সংস্থাকে মাসিক বা বাৎসরিক হিসেবে নির্দিষ্ট পরিমানের অর্থ প্রদান করে থাকে৷

আর এ অর্থ দিয়ে ইন্সুরেন্স প্রতিষ্ঠান বিভিন্ন ব্যবসা পরিচালনা করে ও চুক্তি অনুযায়ী সুদ সমেত ইন্সুরেন্স গ্রহণকারী ব্যক্তিকে ফেরত দিয়ে থাকে৷

আরো পড়ুনঃ

কেন লাইফ ইন্সুরেন্স করা প্রয়োজন?

লাইফ ইন্সুরেন্স করা অবশ্য প্রয়োজনীয়৷ কেননা, লাইফ ইন্সুরেন্স হচ্ছে সেই পদ্ধতি যার বদৌলতে ইন্সুরেন্সকারীর মৃত্যর পর ইন্সুরেন্সকারীর পরিবার বাকি জীবন চলার জন্য বেশ ভালো অঙ্কের অর্থ পেয়ে থাকে৷

পরিবারের যিনি উপার্জনকারী ব্যক্তি, তার উপরই পুরো পরিবার নির্ভরশীল হয়ে থাকে৷ আর তাকেই পুরো পরিবারের আর্থিক দিকটির পাশাপাশি ভবিষ্যত নিয়েও সঠিক সিদ্ধান্ত গ্রহণ করতে হয়৷

উপার্জনকারী ব্যক্তিটি যদি পিতা হন, তবে তার মৃত্যুতে তার স্ত্রী, সন্তানরা দিশেহারা হয়ে পরেন৷ কেননা সে সময়ে তাদের জীবন চালানোর মত অর্থের সংস্থান করা যায়না৷

পরিবারের প্রধান হিসেবে তার মৃত্যু পরবর্তী সময়েও যেন তার নিজের পরিবার আর্থিকভাবে ভেঙে না পারে ও মানুষের দুয়ারে দুয়ারে হাত পাততে নাহয়, সেজন্য লাইফ ইন্সুরেন্স হতে পারে তার দুর্ভাবনা দূরকারী৷

লাইফ ইন্সুরেন্স থাকলে তার মৃত্যু পরবর্তী জীবনে কাপ পরিবারের এককালীন মোটা অঙ্কের টাকা পাবে৷ যার সাহায্যে তাদের পক্ষে ঘুরে দাড়ানো সম্ভবপর হবে৷

এছাড়াও, অবিবাহিত যুবক বা যুবতী, যার পিতামাতা বয়স্ক হয়ে গিয়েছে বা হতে যাচ্ছে তার নিজের পিতামাতার কথা চিন্তা করে হলেও লাইফ ইন্সুরেন্স করা উচিত৷

কেননা, তার মৃত্যুতে তার পিতামাতা একূল-ওকূল দুকূলই হারাবে৷ তখন সে বৃদ্ধ বয়সে জীবিকানির্বাহ করা তাদের দ্বারা সম্ভবপর হবেনা৷ এজন্য লাইফ ইন্সুরেন্স তাদের এরূপ দুর্বিষহ পরিস্থিতি থেকে নিরাপদ রাখতে পারে৷

আবার যদি কোন দম্পতি নিঃসন্তান হন, তাহলেও লাইফ ইন্সুরেন্স তাদের জন্য খুবই প্রয়োজনীয়৷ কেননা, উপার্জনক্ষম স্বামী বা স্ত্রী মারা গেলে অপরজনের আর্থিক অসংগতি দেখা দেবে৷ এমতাবস্থায় তার জন্য লাইফ ইন্সুরেন্স বাকিটা সময় সুন্দরমতো কাটিয়ে দেবার সুযোগ করে দিবে৷

এছাড়াও লাইফ ইন্সুরেন্স চুক্তিতে উল্লেখ থাকলে ইন্সুরেন্সকারী অত্যাধিক অসুস্থ হয়ে পরলেও ইন্সুরেন্সের পুরো টাকা পেতে পারে৷ চুক্তি করা কালীন সময়ে চুক্তিপত্রে এর উল্লেখ অবশ্যই থাকতে হবে৷

তাহলে দেখা যাচ্ছে লাইফ ইন্সুরেন্স প্রতিটি পরিবারেই থাকা প্রয়োজন৷ কেননা, এর মাধ্যমে পরিবারের ভবিষ্যৎ সুরক্ষিত করা যেমন সম্ভব হবে তেমনি উপার্জিত টাকা সঠিকভাবে খরচের একটি খাত তৈরি হবে৷

শেষকথা:

ইন্সুরেন্স বর্তমানে প্রায় প্রতিটি সেক্টরে পৌছে গিয়েছে৷ এর প্রয়োজনীয়তা, গ্রহণযোগ্য অশেষ৷ লাইফ ইন্সুরেন্স প্রভাইডারের সাথে যোগাযোগ করে তাই ইন্সুরেন্স করে নেওয়া হবে বুদ্ধিমত্তার পরিচায়ক৷ দেরি না করে তাই লাইফ ইন্সুরেন্স করে নিন৷

Nazmul Islam

¥×× যা জানো তা সবাইকে জানিয়ে দাও ××¥ £×× যা জানো না তা অন্যের থেকে জেনে নাও ××£

Leave a Comment